ইসলামী সংস্কৃতিকে মাইনাস করে কোন সংস্কৃতির চর্চা গ্রহণযোগ্য হতে পারে না : জাতীয় শিক্ষক ফোরাম

নিজস্ব সংবাদদাতা:

জাতীয় শিক্ষক ফোরাম এর কেন্দ্রীয় সভাপতি অধ্যাপক মাহবুবুর রহমান এবং সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা এবিএম জাকারিয়া এক যুক্ত বিবৃতিতে বলেছেন, দেশের ২০ হাজারেরও বেশি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সাংস্কৃতিক কেন্দ্র স্থাপন করা হবে এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে সরকার। এসব কেন্দ্রে বিভিন্ন ধরনের সঙ্গীত বিশেষ করে দেশাত্মবোধক গান, রবীন্দ্র সঙ্গীত, নজরুল সঙ্গীত, আধুনিক সঙ্গীতসহ বিভিন্ন অঞ্চলের লোকজ সঙ্গীত শিক্ষা দেয়া হবে।
নেতৃদ্বয় বলেন, দুঃখজনক হলো এসব কেন্দ্রে কেরাত, হামদ, না’ত ও ইসলামী সঙ্গীত এর বিষয়টি সম্পূর্ণ বাদ দেয়া হয়েছে। শতকরা ৯২ ভাগ মুসলমানের চিন্তা-চেতনা বাদ দিয়ে অন্যকোন সংস্কৃতির চর্চা হতে পারে না। দেশে ইসলামী কৃষ্টি-কালচার মাইনাস করে সাংস্কৃতিচর্চা হলে এদেশের ঈমানদার মুসলমান কোনভাবেই মেনে নিবে না। সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের প্রতি আহবান এসব সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সিলেবাসের মধ্যে কেরাত, হামদ, না’ত ও ইসলামী সংগীত অন্তর্ভুক্ত করুন এবং এসব বিষয়ের প্রশিক্ষক নিয়োগ দিয়ে সার্বজনীন সিলেবাস করুন। অন্যথায় একমুখি সাংস্কৃতি চর্চার গ্রহণযোগ্য হবে না। ধর্মহীন সংস্কৃতি মুসলিম উম্মাহ মেনে নেবে না।